আবর্ত – সৈকত মন্ডল

যারা ভাঙাচোরা অতীত থেকে উঠে আসে,

হটাৎ পেয়ে যাওয়া উষ্ণতার স্রোতে ভেসে,

বোধ হয় তারাই জানে স্বপ্নভাঙ্গার আঘাত টা,

বোঝে, মুহূর্তে নিঃস্ব হাওয়ার আকস্মিকতা।

যারা নিজেকে বিকিয়ে কিনে আনে প্রেম,

চড়া দামের বাজারে, প্রতিশ্রুতির বদলে,

বোধ হয় তারাই বোঝে ‘আবেগ’ এর মানে,

বোঝে, প্রেমিক আর সওদাগর এর পার্থক্য।

যারা সময় আগলে রাখে অ্যালবাম এর পাতায়,

ক্ষয় এড়াতে নস্টালজিয়া এর সেলোফিন মুড়িয়ে,

বোধ হয় তারাই বোঝে আক্ষেপ এর আসল মনে,

বোঝে, ইচ্ছে আর বাস্তব এর কঠোর সংঘাত।

যারা অভিনয় করে চলে আলোর মঞ্চে,

বুকে এক জগৎ অন্ধকার নিয়ে, রোজ,

বোধ হয় তারাই বোঝে স্নায়বিক স্পন্দন,

বোঝে, হটাৎ পড়া লাইমলাইট এর তীব্রতা।

যারা পরিবর্তনের আশায় প্রতিবাদ করে,

অযৌক্তিক পথে লাল, নীল মিছিল হাঁটায়,

বোধ হয় তারাই বোঝে অধিকার এর শেষ সীমা,

বোঝে একটা হৃৎপিণ্ড নিংরে কতটা রক্ত পাওয়া যায়।

এসব বোঝা-না বোঝা তত্ত্ব থেকে অনেক দূরে,

যারা সপ্নের ঘর বাঁধে কতকটা না বুঝেই,

আশার আগুন জ্বালিয়ে মাদল সুরে মেতে ওঠে,

গাছের বুক জড়িয়ে কান পেতে শোনে গোপন কথা,

ছোটো নদীর বুকে দ্বীপের মত গড়ে তোলে গ্রাম,

তারা বোঝে না, কতটা আগুন লাগে পুড়ে যেতে

বোঝে না, আধুনিক হতে কতটা অভিনয় লাগে,

শুধু জানে,একটা শেষ ঘুমের শিকার হতে হবে সবাইকে,

তার আগে সবটুকু আলো দেখে যেতে হবে,

কতকটা বেহিসাবি হয়েই কুড়িয়ে নিয়ে হবে মুহূর্ত,

ওরা বিশ্বাস করে, ‘মানুষ’ কোনোদিন মরে না,

গভীর ঘুমের পর আবার জেগে ওঠে অন্য জগতে।

____


ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment