চলো অসুখ কুড়োই – সৌম্য ভৌমিক

খুশখুশে কাশি, ঘুষঘুষে জ্বর, ঘুরছে মাথা বনবন,

থেকে থেকেই বুকের ভেতর করছে বেজায় টনটন।

অম্বল নাকি চোঁয়া ঢেকুর! পেটটা ফুলে হয়েছে ঢোল,

কানের মধ্যে কটকট, জমলো বোধহয় প্রচুর খোল।

পেটের ভিতর চিনচিনে এক ব্যথার জ্বালা পাচ্ছি টের,

কালকে প্রচুর ঘাম হয়েছে, এসব বোধহয় তারই জের।

হার্নিয়া নাকি হাঁপানী, বা হামের সঙ্গে বেদম জ্বর,

যখন তখন কেমন যেন করছে শরীর ধড়ফড়।

রোদের চোটে সাইনাসটা কি হানা দিলো আজ আবার,

আমাশা না ফুড পয়জন, এই ভাবতেই রাত কাবার।

পুড়ছে শরীর, জ্বলছে যে মন করছি বড়ই ছটফট,

বেদম শীতে হঠাৎ করেই দুই হাঁটুতে খটখট।

চোখ দুটোতে আঁধার দেখি, বাড়ল নাকি রক্তচাপ,

বিষফোঁড়াটা বিষিয়ে গেলো, জামায় পড়ল রক্তছাপ।

থাইরয়েডের বড্ড জ্বালা খাওয়া দাওয়া সব বারণ,

রক্তে চিনির মাত্রা কেনো হঠাৎ বাড়ল অকারণ!

গেঁটে বাতে কষ্ট বেশ, ইউরিক অ্যাসিড আট ছুঁলে,

গালের ধারের ফুসকুড়িটা ফাটবে এবার মুখ ধুলে।

পিঠে কেনো বেদনা বাড়ে কিডনীতে কি হলো স্টোন।

আমার বড্ড অসুখ, ওগো; তাইতো আমার খারাপ মন,

ঝনঝনে এক অনুভবে কাটছে আমার দিনরাত,

টিবি কিংবা কলেরা বা হয়েছে বোধহয় আমবাত।

এ রোগের ওষুধ জানি, পালাতে হবেই অনেকদূর,

চিন, জাপান, রাশিয়া বা হয়তো কোন অচিনপুর।

_____


ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment