বিবেক নাকি অন্য কিছু – অভিজ্ঞান গাঙ্গুলী

 

    সাগর আজ অনেক বড় বিজ্ঞানী। ভারতের DRDO তে কর্মরত এবং তার রিসার্চ হল মডার্ন weaponary অর্থাৎ নতুন অস্ত্র বানানো হলো তার কাজ। আগের বছর গোরার দিকে একটা নতুন ধরণের guided মিসাইল এর আইডিয়া আসে তার মাথায়। stealth ও মিসাইল টেকনোলজির দারুণ একটা প্রয়োগ। গত তিন মাস আগে তার একটি ছোটো প্রোটোটাইপ টেস্ট করা হয় গোপনে। কিন্তু MI6 এর কান সর্বত্র। একমাস আগেই ব্রিটিশ গুপ্ত সঙ্ঘর থেকে তাকে যোগাযোগ করা হয় আর তাকে সেই মিসাইলের ব্লুপ্রিন্ট বিক্রির প্রস্তাব দেওয়া হয়। আজ এই প্রত্যন্ত গ্রামের একটা ডাকবাংলো তে এসে সাগর বসে আছে সেই উদ্দেশ্যে। দেশের জন্য এই মিসাইল দিয়ে লাভ কি?? এইসব ফালতু সেন্টিমেন্টস তার আর নেই। ছোটবেলায় ছিল হয়তো কিন্তু এখন আর নেই। সবাই আব্দুল কালাম হতে পারে না। MI6 এর অফার করা টাকাটা বিরাট তাতে তার পরের প্রজন্মেরও চলে যাবে আরামে। ব্যাপারটা গোপন তাই এই প্রত্যন্ত গ্রামটা সিলেক্ট করা হয়েছে লেনদেনের জন্য। এখানে আগে নীলকর চাষ নিয়ে বিদ্রোহ হয়েছিল। কাল সকালে হবে লেনদেন আজ রাতে শুধুই ঘুম।

সাগরের ঘুম ভেঙে গেলো একটা ফ্যসফ্যসে আওয়াজে। বাইরে কারুর নিশ্বাস নেয়ার শব্দ হচ্ছে। ব্যাপারটা দেখতে হবে। বাইরে চৌকিদার তো থাকার কথা.. তাই কোনো চোর ডাকাত হবে না। দরজা খুলে আবছা অন্ধকারে সাগর দেখলো একজন রোগা দুর্বল মানুষ বসে হাপাচ্ছে। মানুষটা বোধহয় বহুদিন খাওয়া পায়নি। তবু কি দৃঢ় তার দৃষ্টি… সাগর তাকিয়ে থাকতে পারছে না সেই দিকে। তাকালেই কেমন একটা চরম লজ্জা তাকে পেয়ে বসছে। আর সেই মানুষটার দৃষ্টিতে রাগ নেই… আছে যেনো চরম অভিমান ও হতাশা। দুর্বল গলায় সে বলে উঠলো –

‘যেই দেশের জন্য আমরা সব দিলাম… সেই দেশ কেই বিক্রি করে দিলি?? দেখ.. আমি মাথা নোয়াইনি। দেখ নীল চাষ করব না বলে সাহেব আমার হাত তাই কেটে নিয়েছে…। তাও নিজেকে বেঁচে দেইনি। ‘

এই বলে লোকটা নিজের দান হাতটা আগে করলো। হাত মানে শুধু কনুই অবধি… বাকিটা কাটা হয়েছে অতি নির্মম ভাবে.. রক্ত বেরোচ্ছে… ।

সকালে সাগরের ঘুম ভাঙে ভোরের দিকে। উঠেই নিজের ফোন তুলে নেয়… মি. জ্যাক কে ফোন করে। ‘সরি মি. জ্যাক। the deal is off. Our country might be poor. But not all is for sale. ‘ আমাদের দেশ গরিব… কিন্তু সবকিছু বিক্রির জন্য নয়।

একটা চরম শান্তি অনুভব করছে সে। চাষি পরিবারের ছেলে সাগর। তার মনে পড়ছে তার দাদুর কাছে শোনা গল্পটা। দাদু খুব গর্বের সাথে বলত যে তার বাবা কখনো ব্রিটিশদের আগে মাথা ঝোকাননি। অত্যাচারী তার ডান হাত কেটে নেন… তবু নীল চাষ করেননি। সাগর শুধু চায় তার পুত্রর চোখেও একই শ্রদ্ধা দেখতে তার প্রতি… যা তার দাদুর চোখে সে দেখেছে। কালকে রাতের ঘটনা হয়তো সাধারণ স্বপ্ন। সেই দৃঢ় প্রতিজ্ঞ মানুষটা হয়তো সাগরের বহু চাপে ঘুমিয়ে পড়া বিবেক… অথবা… অন্য কিছু। কে জানে…।

 

_____


FavoriteLoading Add to library

Up next

আষাঢ়ে ভূত – শাশ্বতী সেনগুপ্ত...  আকাশ এখন অনেক বদলে গেছে। বেশি সময়-টময় নেয় না আর। প্রথমেই দুহাতে এক রাশ কালো মেঘ টেনে আনে। তারপর নিজের বুকটাকে ঘন কালো মেঘে ছেয়ে দেয়। ঝটাঝট কয়েকটা ব...
না ভৌতিক চেয়ার  - প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়        ফ্ল্যাটটা কেনার সময়ই প্রোমোটারকে বলে দিয়েছিলাম, একটা ঘর এক্সট্রা চাই। ঘরটা এমন ভাবে কাটিং করে বার করবেন যা খু...
মুখোশ মুখোশআর কত দেখব তোমার ভন্ডামি যত দেখি ততই অবাক হই আমি !সবার সামনে 'আপনি' করে বল তুমি আড়াল হলে 'সখী', 'প্রিয়া' সম্বোধনে রাঙি।তোমার ইমেজ নিয়ে তুমি ভীষণ ...
আভাষ – শাশ্বতী সেনগুপ্ত... সব কিছুই যে ব্যাখ্যা করা যায় তা নয়। কিছু ব্যাপার থাকে যা ব্যাখ্যা করা যায় না। তেমনিই একটা ঘটনার কথা উল্লেখ করব। ঘটনাটা ঘটেছিল সুকৃতির জীবনে। সুকৃতি আম...
ভয় – তমালী চক্রবর্ত্তী... হলঘর থেকে বেরিয়ে মেজাজটা খিঁচড়ে গেল বিতানের। এই বোরিং পেরেন্টস্-টিচার মিটিং এ সে কোনোদিনই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না। কতবার নিপাকে বলেছে একা যেতে। অফিসের ...
ই ফর্ অয়লার – দিব্যেন্দু গাঙ্গুলী... এবারের আলোচনা শুরু করছি ‘e ’ সংখ্যাটি দিয়ে। পাইয়ের মত e ও একটি অমূলদ সংখ্যা। অর্থাৎ দশমিকের পর সীমিত সংখ্যা দ্বারা একে প্রকাশ করা যায় না এমন সংখ্যা। ক...
বাঙালীর দূর্গাপুজো – দীপ্তি মৈত্র... দুগ্গা পূজা ভারী মজা পড়াশুনা নাই ঘুরে ঘুরে ঠাকুর দেখা দিন-রাত্তির ভাই। সংগে চলে “খানা-পিনা” বাহারে বাহার, মাতিয়ে রাখে কটা দিন কি মজাদার।    ছোট্ট ...
দাতা – অরূপ ওঝা কাল তো সে এসেছিল, নিয়ম করেই আসে রোজ। যখন দীপন অফিসে কাজের ফাঁকে দুপুর দেড়টার সময় টিফিন করতে বসে, ঠিক তখনই সে হানা দেয় “জয় মাতাজী, জয় মাতাজী” স্লোগান দ...
উত্তোরণ – সৈকত মন্ডল... যদি ভাবো এক লহমায় সরিয়ে নেবে নিজেকে, তবে থামো, এ সূর্য শেষ সকালের নয়... যদি মনে করো কফিনের নিস্তব্ধতায় মিলিয়ে যাবে, তবে বলে যাও, চেষ্টারও উর্দ্ধে ক...
ভূ-স্বর্গ ঘুরে আসুন... - বিভূতি ভূষন বিশ্বাস               ভ্রমন করতে কে না ভালোবাসে কিন্তু ভ্রমন করাই মানে যেমন আনন্দ করা তেমনই এটাও খেয়াল রাখা উচিত সেটি কোনমতেই যেন নিরান...
ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment