কোথা পাই পাইকে – দিব্যেন্দু গাঙ্গুলী

প্রথম পর্ব

 

‘পাই‘ সংখ্যাটির সঙ্গে কমবেশি সকলেরই পরিচয় রয়েছে। কেননা ছোটবেলায় সবাইকেই বৃত্ত সম্বন্ধীয় অঙ্ক কষতে হয়েছে (ইচ্ছায় হোক বা অনিচ্ছায়)। আজকের আলোচনা সেই পাই নিয়েই।
সমস্ত বৃত্তই প্রকৃতিগতভাবে সমান, আর তাদের পরিধি ও ব্যাসের অনুপাতও স্থির। এই অনুপাতটিই পাই নামে পরিচিত। পাই মূলদ সংখ্যা নয়,অর্থাৎ একে কোন সংখ্যা পদ্ধতিতে দশমিকের পর সীমিত সংখ্যা দ্বারা প্রকাশ করা যায় না, বা একে কোন ভগ্নাংশ রূপেও প্রকাশ করা যায় না। পাইয়ের মান সম্পূর্ণ সঠিকভাবে নির্ণয় করা সম্ভব না হলেও দশমিকের পর বহু সংখ্যক স্থান পর্যন্ত এর মান নির্ণয় করা সম্ভব এবং এই সম্ভাবনাই গণিতমহলে জাগিয়ে তুলেছে পাইকে পাওয়ার এক অতৃপ্ত বাসনা।

পাইয়ের গল্পটা সম্ভবত গণিতের ইতিহাসের মতই প্রাচীন। ব্যবিলনীয়রা পাইয়ের মান নির্ণয় করে পান ৩। ওল্ড টেস্টামেন্টের উদ্ধৃতি থেকে জানা যায় হিব্রুরাও ব্যবীলনীয়দের মত পাইয়ের মান হিসাবে ৩ কেই গ্রহণ করে। খ্রিস্টপূর্ব ১৭০০ শতকের মিশরীয় লিপিকার ‘Ahmes’ নিবন্ধিত একটি প্রাচীন প্যাপিরাসের সূত্র ধরে জানা যায় মিশরীয়রা পাইয়ের মান হিসেবে ব্যবহার করত ৩.১৬। খ্রিস্টপূর্ব তৃতীয় শতকে আর্কিমিডিস নির্ণীত আসন্ন মান হল ৩.১৪। এক শতক পর গ্রিক জ্যোতির্বিদ টলেমী এই মানকে সংশোধন করে করেন ৩.১৪১৬, যা গণিতবিদ্যায় এক অভাবনীয় সাফল্য।
পাইয়ের চিণ্হস্বরুপ  এর প্রচলন করেন সুইস গণিতজ্ঞ লিওনার্ড অয়লার (Leonard Euler)। অনুপাতটিকে প্রকাশ করতে তিনি পরিধির গ্রিক প্রতিশব্দ ‘perimetros’এর প্রথম বর্ণটিকে নির্বাচন করেন।

বিজ্ঞানজগতে পাইয়ের জনপ্রিয়তা এতটাই যে এর নামেই বছরের কিছু নির্দিষ্ট দিন উৎসর্গ করা হয়েছে। ১৪ই মার্চ সারা বিশ্বে পালিত হয় পাই দিবস। ১৯৮৮ সালে প্রথম এর প্রবর্তন করেন সান-ফ্রান্সিসকো নিবাসী পদার্থবিদ ল্যারি শ (Larry Shaw) । ২০০৯ এ U.S. House of Representative-এ সরকারি ভাবে ১৪ই মার্চকে জাতীয় পাই দিবস হিসাবে ঘোষণা করা হয়। ২০১০ এ গুগল তাদের প্রথম পাই সম্পর্কিত ডুডল প্রকাশ করে। ২০১৪-এ গোটা মার্চ মাসকেই পাইয়ের নামে উৎসর্গ করা হয়। কাকতালীয় ভাবে এই দিনই মহান বিজ্ঞানী অ্যালবার্ট আইনস্টাইনের (১৪/৩/১৮৭৯-১৮/৪/১৯৫৫) জন্মদিন, আবার এযুগের অন্যতম সেরা বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং-ও (৮/১/১৯৪২-১৪/৩/২০১৮) এবছরের (২০১৮) এই দিনই পরলোকগমন করেন।
কিন্তু কেন ওই দিনই পাই দিবস পালন করা হয় তা কি আন্দাজ করা গেল? যদি না যায় তাহলে একটু ভেবে দেখুন তো আসলে কী ওই দিনটির তাৎপর্য? এবং অপেক্ষা করুন পরবর্তী সংখ্যায় এর উত্তরের জন্য…………।।

_____


FavoriteLoading Add to library

Up next

চোখ মেলেছে এ রাতের জানালায়... -শীর্ষেন্দু মন্ডল ট্রেনের জানালায়, জানিনা এভাবে শহরকে ছেড়ে যাওয়া ঠিক কিনা, হয়তো সমীচীন। দূরে আলোগুলো কেমন যেন শরীরকে স্পর্শ করে যায়, বুকে খেলে যা...
সাড়ে তিনশ গ্রাম কবিতা... সাড়ে তিনশ গ্রাম কবিতা দিতে পারব,তোমায় আমি ছড়াও দেব,বদলে কি আমাকে দু' পেগ রাম দেবে?দুটো গদ্য বা গল্পের বিনিময়েহুয়িস্কি পাব? কিম্বা ব্রাণ্ডি?যা খেয়ে আমি...
স্ফুলিঙ্গ –  কৌশিক প্রামাণিক...   আজ যেন সব হারিয়ে যেতে চাইছে ক্ষণিকের মিথ্যাগুলোর জন্যে, তবু তো আমি আঁকড়ে ধরতে চেয়েছিলাম সেই পুরোনো তোমাকে | এই সেদিনকারই তো কথা যেদিন আমায...
।।ঠোঁটের ভালোবাসা।।... ফেসবুক থেকে বেডরুমের জার্নিটা তোর মনে আছে?কি যে বলিস? ভোলার জো আছে?তোর এক ডাকেতেই কিভাবে ছুটে গেছিলাম নর্থ টু সাউথ?দরজায় তোর ফার্স্ট অ্যাপিয়ারেন্সেই...
দেখ কেমন লাগে – দেবাশিস ভট্টাচার্য... সাল--2218 একটু আগেই ঘুম টা ভাঙলো সায়ন এর সানাই এর আওয়াজে।মাথা টা এমনিতেই ভারী হয়ে রয়েছে।সেই ভোর রাত্তিরে মা,দিদি আরো সবাই এসে দই,চিঁড়ে দিয়ে মাখা একট...
রক্তাত্ব – সৌভিক মল্লিক... একটা লম্বা ঘর এই পৃথিবী, ছাদের গায়ে ভালোবেসে আঁকড়ে ধরে আছে ফাটল। ফাটলে চুইয়ে চুইয়ে রাস্তা বানিয়ে নেয় রক্ত, সেই রক্তে সভ্যতা আর গণতন্ত্রের বাদল। ...
Google এর উৎপত্তি - দিব্যেন্দু গাঙ্গুলী   বর্তমানে সর্বাধিক ব্যবহৃত ও সবচেয়ে জনপ্রিয় আন্তর্জাতিক ও‍‌‌‍য়েবসাইটটি হল ‘www.google.com’। এটি তৈরি হয়েছিল ১৯৯৬ সাল...
অন্য ভালোবাসা -   তুষার চক্রবর্তী     চিন্ময় প্রায় কুড়ি বছর পর রাত্রে খেয়ে দেয়ে মামাবাড়ির ছাদে বসেছে। গরমকালে রাত্রে খেয়ে দেয়ে এই ছাদে বসার অভ্যাসটা তার...
শেষ থেকে শুরু -পায়েল সেন    সেদিন খুব বৃষ্টি হচ্ছিলো। তাই সুজয় চললো তার ঘরের সমস্ত জানলা বন্ধ করতে। ভিজে গিয়েছিল প্রায়। ঘর অন্ধকার করে এসে একমনে বসেছিলো ...
বটুক বুড়োর ব্যবসা – সৌম্যদীপ সৎপতি...   সব জায়গায় বিফল হয়ে বটুক বুড়ো শেষটাতে ভূত বিক্রির ব্যবসা শুরু করল অনেক চেষ্টাতে বটুক বুড়োর প্ল্যানটা বোঝা ব্যাপারটা নয় অতই সোজা এই ব্যবসায...
ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment