বেল – অদিতি রায়

সাইকেল নিয়ে ফিরলে আর বেল দিতে শুনিনা সজোরে,

যে বেল এর সঙ্গে ছিল

সান্তার থলির থেকে

অনেকটা আনন্দের হুড়মুড়িয়ে বেরিয়ে আসার

নির্মল আওয়াজ৷

দূরের কোনো ট্রেনের হুইসেলের মত

ক্রিং ক্রিং করতে করতে

গলির মুখে ঢুকে পড়তো চাকা,

একটু শব্দ করে নড়ে উঠত

প্রতীক্ষারত সিমেন্টের স্ল্যাব,

তারপর ব্রেক কষে টেনে ধরা সাইকেলের স্পোক,

গেট থেকে সরে যেত

লেজ তোলা হুলো।

সাইকেল নিয়ে ফিরলে আর বেল দিতে শুনিনা সজোরে।

হ্যান্ডেলে ঝোলানো সব

দিনযাপনের ব্যাগ গুলো শূন্য পড়ে থাকে।

কারখানা বন্ধ বহুদিন৷

একটানা কাশির মত

গলির বুকের মধ্যে থেমে থাকে

চেন পড়ে যাওয়া সাইকেল।

____


FavoriteLoading Add to library

Up next

ভূতসঙ্গ – প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়... অনেকদিন পরে বেড়াতে এসেছিলাম পানুর বাড়ি। সে আমার বন্ধু। এক সময় ক্যামেরাম্যান ছিল। বহু ছবিতে তার অসাধারণ চিত্রগ্রহণ আজ স্মৃতির অতলে। তা হোক, তবু বন্ধুত্...
না মিটিতে সাধ এ জীবনে মোর মধুরাতি গেল ফুরায়ে ( বি...      ১৯৪৫ সালের কোনো একদিন, একটি ২০, ২১ বছরের ছেলে অধীর আগ্রহ নিয়ে সায়গল সাহেবের বাড়ি তে এসেছে...নিজের সত্যিকারের পরিচয় দেওয়ার সাহস হয়নি, ক্যামেরা ন...
নিজের কাছে ফেরা – দেবাশিস ভট্টাচার্য... ভোরের আলো একটু একটু করে ঘরের মধ্যে আসতে আরম্ভ করেছে। বাইরের আকাশটা মেটে সিঁদুর রঙের মতো লাগছে। আস্তে আস্তে পাস ফিরে শুলো ত্রিজিত।রাতের অন্ধকার কেটে গি...
হারানো সুর – সুস্মিতা দত্তরায়... চোখের জল বাঁধ ভাঙলো ইরার। চোখ ছাপিয়ে দুই গাল বেয়ে নেমে এলো অশ্রুধারা। দুই হাতে তা মুছে আবার ফিরে তাকাল ওই দোতলা বাড়ীটার দিকে। তারপর ধীর পায়ে উঠোনটা পে...
দূর্গামায়ের সিন্দুরকৌটো – স্বরূপ রায়... ১ আজ চতুর্থী। টুনু আর ফজিল বসে ঠাকুর গড়া দেখছিল। টুনুদের বাড়িতে প্রতি বছর দুর্গাপূজা হয়। টুনুর প্রপিতামহ সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী এই অঞ্চলের জমিদার। ...
ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment