ব্যর্থ স্বাধীনতা – সৌমিক মান্না

বেলাশেষে রবি বিদায় নিল দূর দিগন্ত হতে।
আকাশটাও ক্ষত -বিক্ষত অচেনা রক্তপাতে॥
আহত আকাশ বার্তা দিল ,ভারত হয়েছে পরাধীন।
রক্তাক্ত মাতৃভূমি তখন ব্রিটিশ শাসনাধীন।।
গর্বের সাথে প্রাণ দিল কত তরুণ-অরুণ দল।
বিদেশী অত্যাচারে সিক্ত মায়ের ধোয়াতে চরণতল।।
শরীরের শেষ রক্ত ঝরিয়ে ভেঙে গেল কত বুক।
হিয়ার ভিতর শেষ আগুনটাও রইল না আর নিশ্চুপ।।
অবশেষে এল স্বাধীনতা বিপ্লবীদের হাত ধরে।
উঠল নতুন সূর্য আবার পরাধীনতাকে গ্রাস করে।।
তারিখটা ছিল পনেরোই আগষ্ট, হয়েছিল ভারত স্বাধীন ।
ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা রয়ে গেল সেই দিন।।

এতো গেল সেই ইতিহাসের কথা,
পড়েছি সবাই বারে বারে।
সেই স্বাধীন দেশে মরে মানুষ গণতন্ত্রের হাহাকারে।।
অর্ধ শতাব্দী পার হয়ে গেছে ,হয়েছে প্রযুক্তির উত্থান।
মনুষ্যত্বের অভাবে মানুষ পায়নি যোগ্য সম্মান।
যে রক্ত সিক্ত রাজপথ ধরে এসেছিল স্বাধীনতা ।
সেই রাজপথেই কাঁদে ভিখারী শিশু,না পেয়ে অন্নদাতা॥
গান্ধীবুড়ির আদর্শে যে নারী ভয়কে করেছিল জয়।
পুরুষতান্ত্রিক সমাজের ভিড়ে আজ তো সেই লাঞ্ছনাময়।।
যে মাতৃভূমির বুকেতে দাঁড়িয়ে নজরুল গেয়েছিল সাম্যের গান।
সেই মাতৃভূমি আজ রক্তে ভিজেছে,মুছে গেছে কত প্রতিবাদীর প্রাণ।।
যারা তুলে দেয় মুখের অন্ন,তাদের পেট যে খালি।
আমরা জাতীয় পতাকা উড়িয়ে জোরসে বাজাই তালি।।
যে দড়ি বেয়ে জাতীয় পতাকা আকাশতলে ওড়ে।
সেই দড়িতেই ফাঁস লাগিয়ে চাষি আত্মহত্যা করে।।
পতাকার তলে রয়ে যাওয়া ঐ শহীদ বেদীর মালা।
মেটাতে পারে না রুগ্ন শিশুর পেটের খিদের জ্বালা ।।
হারিয়ে ফেলেছে শৈশব তারা হাতে তুলে নিয়ে কাপ-প্লেট।
স্বাধীনতাকে বিবর্ণ করে ভরাচ্ছে দেশবাসীর পেট।।

যে মাতৃভূমি রক্তাক্ত করেছিল ব্রিটিশরা একদিন ।
ভারতীয়দের করাঘাতে সেই ভূমি কাঁদে প্রতিদিন ।।
যে বিপ্লবীরা স্বপ্ন  দেখেছিল সোনার ভারত গড়ার।
ফুল সব শুকিয়ে গেছে তাদের বরণমালার।।
স্বাধীনতার সূর্য ঢেকে গেছে আবার ঘন কালো মেঘে।
বিবেকহীন মানুষেরা সব এখন আছে জেগে॥
হিংসা আর দ্বন্দ্বের আড়ালে নিভে গেছে কত বাতি।
ব্যর্থ হয়েছে স্বাধীনতা দিবস ,তবে কেন এত মাতামাতি??????

_____


FavoriteLoading Add to library

Up next

অসুখ – তমালী চক্রবর্ত্তী... "ডাক্তারবাবু হামার মরদ কে দয়া করে বাঁচিয়ে লিন।" - প্রবল কান্নায় ভেঙে পড়ল লছমী। গত রাত থেকে অসহ্য পেটের ব্যাথায় কাতরাচ্ছে বাবুলাল। আজ তাই লছমী বাবুলাল ...
সুদূরের পিয়াসী – বৈশাখী চক্রবর্তী... কথা হচ্ছিলো সেদিন বিকেলে তোমার সাথে, মুঠো ফোন ও আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে, শত সহস্র মাইলের ব্যবধান,  তোমার ওই মাটি আর আমার এই প্রাঙ্গনে।।    দেশ ভ...
ভয় – তমালী চক্রবর্ত্তী... হলঘর থেকে বেরিয়ে মেজাজটা খিঁচড়ে গেল বিতানের। এই বোরিং পেরেন্টস্-টিচার মিটিং এ সে কোনোদিনই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না। কতবার নিপাকে বলেছে একা যেতে। অফিসের ...
।।ঠোঁটের ভালোবাসা।।... ফেসবুক থেকে বেডরুমের জার্নিটা তোর মনে আছে?কি যে বলিস? ভোলার জো আছে?তোর এক ডাকেতেই কিভাবে ছুটে গেছিলাম নর্থ টু সাউথ?দরজায় তোর ফার্স্ট অ্যাপিয়ারেন্সেই...
আমার তুমি- মুক্তধারা মুখার্জী...   “কিগো, তাড়াতাড়ি এসো না। মশারিটা তাড়াতাড়ি টাঙিয়ে দিয়ে যাও না। আর কতক্ষণ বসে থাকবো। বসে বসে তো গাঁটের যন্ত্রণাটা বেড়ে গেল”। “তো আমি কি করবো? আম...
বেগুনের বিরিয়ানী - অনামিকা দাস   আপনাকে যদি প্রশ্ন করা হয় যে আপনার "ক্রাশ" এর নামগুলি উল্ল্যেখ করতে,নিঃসন্দেহেই আপনি সেই তালিকার মধ্যে বিরিয়ানীর নামটাই সর্বপ্...
পুজোর একদিনের পরকীয়া প্রেম (সাথে সুজয় দা আর পুচকী)... আমি সোহিনী , আর ওই যে দালানে হলুদ পাঞ্জাবী পরা ভদ্রলোকটি আমার দাদা আর তার ঠিক পাশেই বেগুনী পাঞ্জাবী , দাদার বন্ধু সুজয় দা । আজ অষ্টমীর সকাল আর আমাদের...
মুখরোচক দইয়ের চপ বানিয়ে ফেলুন সহজেই – মালা ... কথায় আছে 'যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে,' | তবে আমাদের অর্থাৎ গৃহিণীদের কাছে এই প্রবাদবাক্যটি হয়তো তেমনভাবে খাটে না মূলত আমাদের সন্তান এবং পতিদেবতার সৌজন্যে ...
দূর্গামায়ের সিন্দুরকৌটো – স্বরূপ রায়... ১ আজ চতুর্থী। টুনু আর ফজিল বসে ঠাকুর গড়া দেখছিল। টুনুদের বাড়িতে প্রতি বছর দুর্গাপূজা হয়। টুনুর প্রপিতামহ সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী এই অঞ্চলের জমিদার। ...
অবশেষে খুঁজে পেলাম তোমাকে... -অর্পিতা সরকার    আর যাই করিস ওই মেয়ের দিকে ভুলেও তাকাস না সৌম্য, একবার যদি তোর লাইফে ঢোকে তাহলে তোর কেরিয়ার ফিউজ হয়ে যাবে গুরু। শত হস্ত দূরে থাক ওই...
ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment