মুখরোচক এগডাল বানানোর সহজ কৌশল – মালা নাথ

 

  সুকুমারবাবুর অমর সৃষ্টি ‘অবাক জলপান’ নামক নাটকের বেশ কয়েকটি সংলাপে স্রষ্টা তাঁর আপন অন্তরের সমগ্র মাধুরীকে একত্রিত করে এবং তাঁর ট্রেডমার্ক বলিষ্ঠ হাস্যরসকে পুঁজি করে জলের যে প্রকারভেদের কথা উল্ল্যেখ করেছেন তা আট থেকে আশি সকলের মনেই হাসির উদ্রেক ঘটিয়েছে,তারই মধ্যে অন্যতম হলো ‘জিভের জল’ নামক শব্দটি | তবে এখানে একটা কথা  মানতেই হবে এই নাটকটির কেন্দ্রীয় চরিত্র যিনি ভিনগাঁয়ের পথিক সারাটা পথ ঘুরে অত্যন্ত ক্লান্ত হলে এবং তৃষ্ণা নিবারণের জন্যে অন্য একটি গ্রামে এসে উপস্থিত হলে কয়েকফোঁটা জল পান করাটাকেই সেই অবস্থায় তিনি স্বর্গসুখ বলে কল্পনা করছিলেন ঠিক তেমনই আমরা ভোজনরসিক বাঙালীগণও নতুন নতুন রান্নার উদ্ভব এবং সেটিকে যত্ন করে রেঁধে নিজে এবং অপরকে খাওয়ানোই হলো আমরা অর্থাৎ ভোজনরসিক বাঙালীদের কাছে স্বর্গসুখ এবং বাঙালীর নামের আগে ‘ভোজনরসিক’ এই উপাধিটারও সার্থকতা  | তাই আজ এমনই এক রান্নার রেসিপি নিয়ে উপস্থিত হয়েছি  যাতে ‘ভোজনরসিক’ এই উপাধিটি চিরস্থায়ীভাবে বাঙালীর নামের আগেই ব্যবহার করা হবে  | তবে আসুন না এবার একটু জেনে নেওয়া যাক সেই বিশেষ পদটির প্রস্তুত প্রণালী ,

উপকরণ :-

১) হাঁসের ডিম (৪ টি)

২) মুসুর ডাল (২০০ গ্রাম)

৩) আদা বাটা (১ চামচ)

৪) রসুন বাটা (১ চামচ)

৫) পিঁয়াজ বাটা (১ চামচ)

৬) লঙ্কা গুঁড়ো (১ চামচ)

৭) হলুদের গুঁড়ো (পরিমাণমতো)

৮) নুন (পরিমাণমতো)

৯) তেজপাতা (১ টি)

১০) কাশ্মীরী লঙ্কা (২ টি)

১১) সরষের তেল (৬ চামচ)

১২) টমেটোর (১ টি)

১৩) গরম মশলা (পরিমাণমতো)

পদ্ধতি :-

প্রথমে কাশ্মীরী লঙ্কা বেঁটে সেটিকে ডিমগুলোর সাথেই সেদ্ধ করে নিতে হবে,কারণ এতে ডিমগুলো লাল হবে | এরপর ডাল সেদ্ধ করতে হবে এবং কড়াইয়ে তেল দিয়ে সেদ্ধ করে রাখা ডিমগুলোকে ভেজে নিতে হবে  | এরপর আবার একটু কড়াইয়ে তেল দিয়ে তেজপাতা,ফোঁড়ন দিয়ে পিঁয়াজ,রসুন,আদা বাটা এবং পরিমাণমতো নুন,লঙ্কা,হলুদের গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে ভাজতে হবে এবং একটু লাল হয়ে গেলে টমেটোরগুলো দিয়ে আবার একটু ভেজে নিতে হবে  | এরপর সেদ্ধ করা ডালটুকুও কড়াইয়ে মধ্যে ঢেলে দিতে হবে ও একটু ফুটিয়ে নিয়ে তার উপর ডিম ভাজা এবং পরিমাণমতো গরম মশলা দিয়ে ঘনঘন নামাতে হবে,এরপর গরম ভাত কিংবা রুটির সাথে উপভোগ করুন এগডাল  |


ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment