সারমেয় বৌদি

– অর্পিতা সরকার 

দ্য বিবাহিত এমন রূপসী বৌকে ফেলে যে কেউ বাইরে কাজে যেতে পারে, এই হেন গুরুতর চিন্তা ছোট্ট মফস্বলটার তস্য ছোটো পাড়ার অনেক ছেলেবুড়োর রাতের ঘুম নষ্ট করছে প্রায় মাস দুই যাবৎ।যেদিন অনুপম হঠাৎ বিয়ে করে পাড়ায় ঢুকলো, নতুন বৌয়ের মুখ দেখে সক্কলের চোখ টেরিয়ে গেছিলো__ সত্যি, মোহিনীই বটে।শুধু রূপে নয় গুণেও মন জয় করল মোহিনী ।অনুপমের ছোট্ট সংসারটার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিল কয়েকদিনের মধ্যে।বুড়ি ঝিটাকে মাইনে পত্তর দিয়ে দেশের বাড়ি পাঠিয়ে দিল।আহারে বুড়ি মানুষ, এই বয়সে কি আর এতো কষ্ট সয় ? একটু আরাম করুক।একটি অল্পবয়সী ছেলে ছিল ফাইফরমাশের জন্য, অনুপম বাইরে যাবার আগে তাকেও ছাড়িয়ে দিয়ে গেছে।বলা যায় না,  উঠতি বয়সের ছেলে, কখন কী করে বসে।

সূর্য ঢলে পড়লেই মোহিনী রোজ পশ্চিমের ঝুল বারান্দাটায় এসে দাঁড়ায়।কণে দেখা আলোয় আলগা চোখে চারপাশটা দেখে।বাতাসে খোলা চুল ওড়ে, আঁচলটা ওড়ার জন্য ছটফট করে। এমনিতে মোহিনী খুব একটা বাড়ি থেকে বেরোয় না, কিন্তু পাড়ার অনেক কিশোর-যুবক-বৃদ্ধের স্বপ্নে তার অবাধ যাতায়াত।চিলতে হাসি খেলে যায় মোহিনীর ঠোঁটে।ছেলে ছোকরারা তার নতুন নামকরণ করেছে __ সারমেয় বৌদি।করবে নাই বা কেন, যদি পাঁচ পাঁচটা কুকুর কারো আগে পিছে ঘোরে তো এমন নামকরণ স্বাভাবিক।রটে গেছে অনুপম বৌকে পাহারায় রাখার জন্য এইরূপ ব্যবস্থা করে গেছে।হা হা হা।অনুপম , খুব বাধ্য ছিল তার।অবশ্য এখনও খুবই বাধ্য।

এলাকার আবহাওয়া কদিন ধরে একটু সরগরম।একজোড়া কপোত- কপোতী বেপাত্তা।হয়তো পালিয়ে বিয়ে করেছে।এখন মধুচন্দ্রিমায় ভাসছে।তাদের নিয়ে রসালো আলোচনায় চায়ের দোকান, অন্দরমহল সব চটচট করছে।মোহিনী এসবের মধ্যে নেই, সে তার কুকুরদের সঙ্গে ব্যস্ত। তাদের খাওয়ানো- ধোয়ানো__ বেশ কাটছে দিনগুলি।সারমেয়দের চেহারাতেও সুখের চমক, হবে নাই বা কেন ? নিজের পরিত্যক্ত নরদেহ ভক্ষণের সৌভাগ্য আর কতোজনের হয় । মোহিনী রান্নাঘরটা সবসময় তালাবন্ধ রাখে।তাছাড়া তার এইসব বাসী খাবারে কোনো আগ্রহ নেই। তার ক্ষিদে ভীষণ কম। কিছুটা টাটকা উষ্ণ পানীয় তার অনেকদিনের বেঁচে থাকার ইন্ধন জোগায়। আবার একটা হাসির বিদ্যুৎ খেলে যায় মোহিনীর ঠোঁটের এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে।

অনবরত ঘন্টি বাজিয়ে একটা নীল সাইকেল এই নিয়ে অষ্টম বার তার গেটের সামনে দিয়ে চলে গেল। এ পাড়ারই ছেলে না ? বেশ দেখতে তো ছেলেটি। তার সারমেয়কুলের নতুন সদস্যটির জন্য একটা ধারালো কটাক্ষের প্রস্তুতি নিয়ে অপেক্ষা করে মোহিনী__

——-


FavoriteLoading Add to library
Up next
রাতের ট্রেন ভয়ঙ্কর - অভিজ্ঞান গাঙ্গুলি     ঘটনাটা বেশ কয়েক বছর আগের। তখন ফার্স্ট ইয়ার এ পড়ি। ওই মে মাস এর সেমিস্টার ব্রেক এ আমরা ঠিক করি কাশ্মীর ঘুরতে যাব। আমরা বলতে...
আডোম শুমারী – সৌম্য ভৌমিক... কত বডি আসে দিনের অবকাশে জ্বালা করে ওঠে চোখটা , আদম শুমারী ঘরেতে কুমারী বিড়ি ধরিয়েছে লোকটা | একদিন রাতে প্রেমিকের হাতে খুন হলো যে যুবতী , লোকট...
চল দাওকি – দেবাশিস_ভট্টাচার্য... মন খারাপ করা এক বিকেলে রুশা দাঁড়িয়ে ছিল দাওকি ফরেস্ট বাংলোর সামনের লনে। অস্তগামী সূর্যের লাল আলো ধীরে ধীরে ছড়িয়ে যাচ্ছে দূরের পাহাড়গুলোর অন্দ...
একটা রাত – মুক্তধারা মুখার্জী...  উফফ! আজকে একটু বেশীই রাত হয়ে গেলো। এখন তো কোনো ট্যাক্সিও পাবো না। আর মেইন রাস্তার মোড় অব্দি না গেলে ওলাগুলোও আজকাল ঠিকঠাক পাওয়া যায় না। নাঃ! হাঁটতেই ...
বিজলী বাতি – গার্গী লাহিড়ী... আশির পঁচাশি রামবাবু গুপ্তা লেনে ভাড়া করা ছোট ঘরে মায়ের সাথে থাকে দুই বোনে , নামের বাহার লিলি ও রূপালী মায়ের নাম কুমারী বিজলী | অবাক হচ্ছো  ? মা ...
স্মার্টফোনের দুনিয়া কাঁপাতে আসছে Xiaomi A2... - অভিষেক চৌধুরী   বহু প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে মোবাইল দুনিয়ায় বিপ্লব ঘটাতে আসতে চলেছে xiaomi A2। ভারতের বাজারে Xiaomi- র জনপ্রিয়তা নিয়ে নতুন কর...
টান – সুস্মিতা দত্তরায়... নাম ছিল তার নেপাল মাহাতো। আমরা ডাকতাম 'নেপুদা' বলে। হয়তো কখনও কোনো উঁচু ক্লাসের দিদি আদর করে এই নামটা দিয়েছিল, তারপর থেকে সেই নামটাই রয়ে গেছে। সে যাই ...
উপহার – বিভূতি ভূষন বিশ্বাস... মায়ের হাত ধরে কাঁচা রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে আছি । একেবারে অজপাড়াগাঁ ফাঁকা রাস্তা,লোকজন নেই বললেই চলে । দুটি ছোট্ট ছেলে কাঁধে হাত দিয়ে হেঁটে আসছে । আমার থ...
আলতুফালতু   ছন্দ নিয়ে ধন্দ থাকলে মন্দ বলে লোকে,  কেউ কেউ নিজেই লেখে কেউ বা স্রেফ টোকে. জমলে শুধু ক্ষীর কেনো বরফও ও তো জমে, জমজমাটি দৃশ্য দেখলে চোখের নজর কমে. ঠো...
অপারেশন ব্লুস্টার – অঙ্কুর কৃষ্ণ চৌধুরী... অমৃতসরের স্বর্ণমন্দির, শিখ ধর্মাবলম্বী তথা ভারতবাসীর পবিত্রভূমি। প্রতিদিন এখানে বহু ভক্তের আগমন হয়, আগমন হয় বহু পর্যটকের। এমন এক ধর্মীয় স্থান যুদ্ধক্...
ADMIN

Author: ADMIN

Comments

Please Login to comment